এ কেমন রমজান

Faiyaz Rahim

চলে এসেছে মাহে রমজান তবে নেই এবার সেই আমেজ। দেখা যাচ্ছে না সেই বাহারি সব খাবার-দাবার। চোখে পড়ছে না লোভনীয় সব  ঐতিহ্যবাহী খাবারের পসরা। তবে কি আমরা এই রমজানে আশা করেছিলাম? প্রশ্নটির উত্তর সবার কাছেই না হবে। 

হয়তো যারা বেঁচে আছে কিংবা আগামীতে বেঁচে থাকবে সকলের জীবনে এই রমজান জেনো স্মরণীয় রমজান। যেই রমজানে নেই রাস্তাঘাটের জ্যাম, নেই শপিং মলের উপচে পড়া ভিড়, না কেউ বলছে,”এবারে পোশাকের দাম বেশি” কিংবা কেউ বলছে, “এবার আমি বড় বাপের পোলায় খায়” খাব। এরকম সব বিচিত্র এবং সুন্দর দিক গুলো যেন আমাদের রমজান এর বৈশিষ্ট্য তবে এবার তা নেই। আছে গরিবদের চোখে কষ্ট, আছে  মধ্যবিত্ত মানুষের দুশ্চিন্তা কিভাবে চলবে জীবন। যে জীবনে আশা করিনি আমরা কেউ। 

খোঁজখবর নিয়ে দেখা গেছে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে  যারা দেশের পোশাক শিল্পের সঙ্গে জড়িত কেননা বিভিন্ন পোশাক শিল্পের লোকজন বলেছেন,

“আমরা সারা বছর যা না বেচতে পারি, এই এক মাসে তার থেকে বেশি বেচি”

এবার রমজানে সকল মুসলিম সম্প্রদায় বাসায় বসে ইবাদত-বন্দেগিতে ব্যস্ত রয়েছেন। ফলে নেই মসজিদে মসজিদে ভিড় কিংবা মুসলমান মুসলমানের একটি ভ্রাতৃত্বের বন্ধন।

জীবন সুখ দুঃখ মিলিয়ে থাকবে। এই সমস্যা আমাদেরকে তা বুঝিয়েছে। তবে সমস্যা সমাধান হবে এই আশায় বেঁচে থাকাই আমাদের একমাত্র  উপায়। 

“থাকবো আমরা ঘরে 

  মনে আছে প্রত্যয় 

পারবো আমরা করতে 

  এ পৃথিবীকে জয় 

সমস্যা যখন এসেছে 

আসবে আবার সমাধান 

নিজে যদি থাকি ভালো 

এই বড় অবদান”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *